ডলু নদীর তীর সংরক্ষণে সাড়ে ৫৭ কোটি টাকা ব্যয়ে ৬টি প্রকল্পের উদ্বোধন করলেন আবু রেজা নদভী এমপি।

প্রিয়দেশ ডেক্স: চট্টগ্রাম-১৫ (সাতকানিয়া-লোহাগাড়া) আসনের সাংসদ প্রফেসর ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভী বলেন, নদী ভাঙ্গন মানুষের জীবনে এক কঠিন নিয়তি, বাধ্য হয়েই মানুষকে তা মেনে নিতে হয়। নদী ভাঙ্গনের কারণে মানুষের ঘর-বাড়ী স্থানান্তরিত হয়। তিনি বলেন, নদী ভাঙ্গনের ফলে জীবনহানি না হলেও জমি ও ফসলহানি হয়। যে ব্যক্তি বা পরিবার নদী ভাঙ্গনের শিকার হয়, তারা সর্বস্বান্ত হয়ে পড়েন। নদী বিধৌত গ্রাম বাংলার নদী সিকস্তির শিকারদের ব্যক্তিগত ও পারিবারিক ক্ষতিপূরণ কখনোই পূরণ করা সম্ভব নয়। বর্তমান সরকার নদী ভাঙ্গন রোধে গুরুত্ব দিয়ে কাজ করছে জানিয়ে তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সু-দৃষ্টি এবং তাঁর নিজের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় সাতকানিয়া-লোহাগাড়ায় সাঙ্গু ও ডলু নদীর ভাঙ্গন রোধে ৫৭৭ কোটি টাকার মধ্যে প্রথম প্যাকেজে বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে ৩৩৩ কোটি টাকা। বর্তমানে যার বাস্তবায়ন চলমান। তিনি বলেন, নদী শাসনে বর্তমান সরকারের এই বিশাল বরাদ্দ সাতকানিয়া-লোহাগাড়ার ইতিহাসে মাইল ফলক হয়ে থাকবে।
তিনি আজ ৩১ অক্টোবর ২০১৮ইং বুধবার সারাদিন ব্যাপি সাতকানিয়া-লোহাগাড়ার ৬টি স্থানে ৫৭ কোটি ৫৫ হাজার টাকা ব্যয়ে সর্বমোট ৪৩৫০ মিটার ডলু নদীর তীর সংরক্ষণে পাথরের স্লেপ বসানো প্রকল্পের উদ্বোধনকালে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। উদ্বোধনকৃত প্রকল্পগুলো হল: (১) আধুনগর, আলুরঘাট পাকা ব্রীজ, ডা. হাবিবুর রহমান পাড়া, মসজিদ্দা ষ্টিল ব্রীজ ও আখতারিয়া পাড়া। ৮ কোটি ১০ লক্ষ ৮৫ হাজার টাকা ব্যয়ে ৫৫০ মিটার। (২) আলুরঘাট পাকা ব্রীজ, মসজিদ্দা ষ্টিল ব্রীজ, গোলাভিটা ও আধুনগর সওদাগরপাড়া এলাকায় ১১ কোটি ৪১ লক্ষ ব্যয়ে ৮০০ মিটার। (৩) দানুর মা’র ঘাট, হাইদারের টেক, বারোদোনা, আকবরপাড়া ও আবুল হোসেন মাষ্টার পাড়া এলাকায় ৮ কোটি ৬৭ লক্ষ ৯৬ হাজার টাকা ব্যয়ে ৭০০ মিটার। (৪) সামিয়ারপাড়া, পেঠান সিকদার পাড়া, মান্নান মাষ্টারের ঘাটা, গারাংগিয়া মাদ্রাসা, ফতেহ আলী শাহ মাজার ও আলুরঘাট এলাকায় ১১ কোটি ২৮ লক্ষ ৫৪ হাজার টাকা ব্যয়ে ৯০০ মিটার। (৫) নলুয়া ডলু ব্রীজের উজান ও ভাটিতে, পূর্ব ডলু, পূর্ব ঘাটিয়াডাঙ্গা, ইছামতি ও আলিনগর এলাকায় ৯ কোটি ১০ লক্ষ ৫৩ হাজার টাকা ব্যয়ে ৭০০ মিটার। (৬) মহাদেব বাড়ী, খান মসজিদ, হিলমিলি, মেহেদিপাড়া, গোলাঘাটা ও রামপুর এলাকায় ৮ কোটি ৪১ লক্ষ ৪২ হাজার টাকা ব্যয়ে ৭০০ মিটার-সর্বমোট ৫৭ কোটি ৫৫ হাজার টাকা ব্যয়ে ৪৩৫০ মিটার ডলু নদীতে পাথরের স্লেপ দিয়ে তীর সংরক্ষণ।
উপরোক্ত প্রকল্পগুলো উদ্বোধনকালে উপস্থিত ছিলেন প্রকল্প পরিচালক ও নির্বাহী প্রকৌশলী বিদ্যুত কুমার সাহা, সাতকানিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র-সহ সভাপতি মাস্টার ফরিদুল আলম, পানি উন্নিয়ন বোর্ড পটিয়া পওর শাখা-১ এর উপ-সহকারী প্রকৌশলী অনুপম দাশ, উপ বিভাগীয় সহকারী প্রকৌশলী ইঞ্জিনিয়ার শওকত ইবনে শহীদ, উপ সহকারী প্রকৌশলী আকরাম হোসেন, সাতকানিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মাহবুবুর রহমান, দপ্তর সম্পাদক ও উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক সাইদুর রহমান দুলাল, উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য এরফানুল করিম চৌধুরী, উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা শামশুল আলম, নলুয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আহমদ মিয়া, পৌরসভা আওয়ামীলীগ নেতা গোলাম ফারুক রুবেল, সাতকানিয়া পৌরসভা প্যানেল মেয়র মোহাম্মদ আলি, লোহাগাড়া উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা এইচ.এম গনি সম্রাট, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা যুবলীগের তথ্য বিষয়ক সম্পাদক মিয়া মোহাম্মদ শাহজাহান, লোহাগাড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য নুরুল আলম জিকু, উপজেলা জাতীয় শ্রমিকলীগ সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ নুরুল হক নুনু, পদুয়া ইউপি চেয়ারম্যান জহির উদ্দিন, পশ্চিম ঢেমশা ইউপি চেয়ারম্যান আবু তাহের জিন্নাহ, সাতকানিয়া উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক হারেজ মোহাম্মদ, লোহাগাড়া উপজেলা যুবলীগ নেতা বাদশা খালেদ, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মুজিবুল হক টিটু, লোহাগাড়া উপজেলা যুবলীগ নেতা মিজানুর রহমান মিজান, মুরশেদুল আলম নিবিল, সাতকানিয়া উপজেলা যুবলীগের সদস্য দিদারুল আলম শিপন, আব্দুর রহিম, স্থানীয় সাংসদের সহকারী একান্ত সচিব এসএম সাহেদ, দেলোয়ার হোসেন বেলাল, ওমর ফারুক ভুট্টু, আফছার উদ্দিন, ছাত্রলীগ নেতা মো: ইদ্রিস প্রমুখ।

No comments