বেকার যুবকদের মডেল হতে পারে পেঁপে চাষী লোহাগাড়ার হাফেজ বেলাল।

বেকার যুবকদের মডেল হতে পারে পেঁপে চাষী লোহাগাড়ার হাফেজ বেলাল।

এম. হোছাইন মেহেদী, লোহাগাড়া (চট্টগ্রাম):
পেঁপে চাষে ভাগ্য পরিবর্তনের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন লোহাগাড়া উপজেলার চুনতি ইউনিয়নের আদর্শপাড়ার যুবক হাফেজে কোরআন মোহাম্মদ বেলাল উদ্দিন। পাঁচ ভাই ও তিন বোনের মধ্যে মা-বাবার তৃতীয় সন্তান বেলাল। তিন বছর আগে তার পিতা আহমদ কবির মারা যান। ডাকবাংলা নার্সারির মালিক তার ভাই ইব্রাহীমের পরামর্শ ও সহযোগিতায় পেঁপে চাষ করে তিনি এখন স্বাবলম্বী হওয়ার পথে।
সরেজমিন দেখা যায়, ইউনিয়নের বনপুকুর সংলগ্ন আউলিয়া মসজিদের পশ্চিম পাশেই তার পেঁপে বাগান। এ সময় তিনি বাগানে একাই কাজ করছেন। প্রথমে ১৬ শতক জমি জমি নিয়ে চাষ করেন উন্নত জাতের রেড লেডি পেঁপে চারা। শুরুতেই লাভের মুখ দেখেন বেলাল।  ১৬ শতকে তার খরচ হয় প্রায় ৩৪ হাজার টাকা। প্রতি কেজি পেঁপে ৩৫ টাকা দরে বিক্রি হয়। এ পর্যন্ত বিক্রি করেছেন প্রায় ৮৮ হাজার টাকার পেঁপে। সামনে এর পরিমাণ আরো বাড়বে বলে জানান। প্রাথমিক সাফল্যে আত্মবিশ্বাসী বেলাল পার্শ্ববর্তী আরো প্রায় ২ একর জমি বছরে কানি (৪০ শতক) প্রতি ৭ হাজার টাকা  দেওয়ার শর্তে বর্গা নিয়ে পেঁপে চারা রোপণ করেছেন। সার ও স্প্রে তিনি নিজেই করেন। এক্ষেত্রে তার প্রায় ৪ লাখ টাকার কাছাকাছি খরচ হবে বলে জানায়।
উপজেলা কৃষি অফিস থেকে সার্বিক সহযোগিতা পাচ্ছেন বলে তিনি জানান। সরকারি ও বেসরকারি পৃষ্ঠপোষকতা পেলে আরো ব্যাপক আকারে পেঁপে চাষের পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানান। তাই তিনি অল্প খরচে কিছু সরকারি খাস জমি লিজ পেতে আগ্রহী।  বেলালের শিক্ষক আধুনগর গুল-এ-জার বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ইংরেজি শিক্ষক এম এন আবসার শিশির জানান, ‘বেলাল খুবই পরিশ্রমী ছেলে। তার বাগান দেখে এসে আমারও খুব ভালো লেগেছে। বেলাল শিগগিরই এলাকাজুড়ে বেকার যুবকদের কাছে মডেল হয়ে উঠবে। আশাকরি তাকে দেখে এলাকার অন্যান্য বেকার যুবকরাও স্বনির্ভর হতে অনুপ্রাণীত হবে।

No comments